Image
 
Gifts: Misti | Mahabhoj | Cake
Movie: Bengali | Hindi | Satyajit
Music: Rabindra | Najrul | Adhunik
Books: Children | Pujabarshiki | Novel
তীর্থযাত্রী প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন আইভি চ্যাটার্জী   
আর্টিকেল সূচি
তীর্থযাত্রী
পাতা 2
পাতা 3
পাতা 4
পাতা 5
পাতা 6
পাতা 7
পাতা 8
পাতা 9
পাতা 10
পাতা 11
পাতা 12

বর্ষাকাল মানেই এইসব পাহাড়ী গ্রামে নানান অসুবিধে। একে তো টিলা আর পাহাড়, মাঝে মাঝে ক্ষেত, জঙ্গল। শাল মহুয়া কুর্চি হরিতকী বহেড়ার জঙ্গল। আমলকি, কেঁদ, অর্জুন গাছের জঙ্গল। রোদ উঠলে গীর্জার চূড়া এখান থেকেই দেখা যায়। আজ আকাশ পরিষ্কার নয়। কালো মেঘে বিষন্ন, গীর্জার চূড়াও অভিমানে মুখ লুকিয়েছে। সারারাত বৃষ্টি হয়েছে, ভোরবেলায় পাখিগুলো উঠে পড়েছে রোজকার মতই, তবু জলে ভেজা ভারি ডানা মেলতে চাইছে না বুঝি, ভারি ভারি পালক নিয়ে গাছের ডালে ডালে চুপ করে বসেই আছে। বুনো হাওয়ায় নানা ফুলের গন্ধ।

মেঘের চাদর ঢাকা প্রায় ঘুমন্ত গ্রামের রাস্তায় একা একা চলেছে সুমিত্রা। সুমিত্রা বাস্কে। আজ রবিবার। ফাদার নিশ্চয় এতক্ষণে উঠে মোমবাতিগুলো জ্বালিয়ে ফেলেছেন। ফাদার স্টিফান। কালো রোগা মেয়েটির বড় বড় চোখে কি ভাষা পড়েছিলেন কে জানে, মাঝে মাঝেই ডেকে নিতেন গীর্জার কাজে। ছোট গীর্জাটা একটা টিলার ওপর। আশেপাশে বেশ খানিকটা বুনো ঝোপঝাড় ছিল। সুমিত্রা সেখানে ফুলের বাগান করেছে। গাজর, শালগম, বেগুন, লঙ্কার গাছ লাগিয়েছে। রবিবারের মাস নিয়ে ব্যস্ত থাকতেন ফাদার। হারমোনিয়াম বাজিয়ে গান গাইতেন। ভারি সুন্দর সে গান। ‘জয় যিশু জয় যিশু, জয় প্রভু জয় তব’, বাগানের মাটি ঝুরো ঝুরো করে আলগা করতে করতে সুমিত্রাও আনমনে গান গাইত।

ফাদার ভর্তি করিয়ে দিলেন স্কুলে। গ্রামের একমাত্র পাকা বাড়ি, প্রাইমারি স্কুলটা। সুমিত্রাই একমাত্র ছাত্রী যে শহরের বড় স্কুলেও ভর্তি হতে পেরেছিল। বাকিরা গ্রামের স্কুলেই পড়ে রইল। মেয়েরা তো আর একজনও নয়, পবন-প্রিয়নাথ-ডমন ছেলেরাও পাশ করতে পারে নি। সদরে বড় স্কুলে ভর্তি করে দিলেন ফাদার। কনভেন্ট স্কুল। অসুবিধে হয় নি। সুমিত্রার বাপকে গ্রামের আরও পাঁচজনের সঙ্গে আগেই খ্রীস্টান করে নিয়েছেন ফাদার। ফাদারের কাছে সুমিত্রারা শিখেছে, ‘লাভ দাই নেবার।’ ফাদার শিখিয়েছেন, ‘জীবন এক তীর্থযাত্রা। পরম করুণাময় ঈশ্বরপুত্র যিশু হাত ধরে নিয়ে চলেন সে যাত্রাপথে। জয় যিশু জয় যিশু বাবা না পারি বর্ণিতে তব মহিমা।’

স্কুলে গিয়ে সুমিত্রার নতুন বন্ধু হয়েছে অনেক। পরিষ্কার জামাকাপড় পরে ওরা, পায়ে জুতো না দিয়ে স্কুলে যাবার কথা ভাবাই যায় না, টানটান চুলে লম্বা বেণী বেঁধে আসে কুনি সোরেন, মধু খালকো, বাসন্তী টুডু, বালিকা মুর্মুরা। সুমিত্রা তবু বোঝে অন্যরকম। ঐ যে কটা চুলের মেয়েটা, অনুপ্রিয়া নাম কিংবা রূপা-সুমনা-অঙ্কিতা, ওরা সুমিত্রাদের সঙ্গে কথাই বলে না। বালিকা-কুনি-বাসন্তী-মধুকে দেখে সুমিত্রা, ঐ অনুপ্রিয়াদের সঙ্গে কথা বলতে পারলে কৃতার্থ হয়ে যায়।



 

প্রতিবেশী ওয়েবজিন