Image
 
Gifts: Misti | Mahabhoj | Cake
Movie: Bengali | Hindi | Satyajit
Music: Rabindra | Najrul | Adhunik
Books: Children | Pujabarshiki | Novel
নন্দীগ্রামের খেউড় লিখব না প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন রোহন কুদ্দুস   
আর্টিকেল সূচি
নন্দীগ্রামের খেউড় লিখব না
পাতা 2
পাতা 3

[ বিশেষ সতর্কীকরণ : এই লেখাটায় নন্দীগ্রামের নারীমাংস, ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন ব্লা ব্লা ব্লা ইত্যাদি নেই। তাই শিশুপাঠ্য রচনায় যাদের আগ্রহ নেই তারা পড়লে আমি দায়ী নই। আর হ্যাঁ, লেখাটা পড়ে আমাকে বামঘেঁষা মনে হ’লে ‘মাদারবোর্ড’ জাতীয় হাইটেক শব্দের ঐপারে গিয়ে গাল দেবেন। বি.টেক-এর চার বছর খুব ভয়ানক গালাগালি হজম ক’রে এখন প্রায় প্রুফ হ’য়ে গেছি।]

চাদ্দিকে নন্দীগ্রামের কথাবার্তা। সেদিন ট্রেনের এ.সি. কামরার ঠান্ডাতে বসেও দেখি দুই ভদ্দরলোক এই নিয়ে হাতাহাতি শুরু ক’রে দিলেন। কী উত্তপ্ত কথাবার্তা! কত লোক কত কিছু বললেন, লিখলেন। গাইলেনও কেউ কেউ। এমনকি গণধর্ষণ আর মহিলাদের শ্লীলতাহানি এমন ক’রে লেখা আর বলা হচ্ছে... আমার এককালের এক সহপাঠী কলেজের ফচকেমি ছাড়তে পারে নি এখনও। ব্যাটা বলে-- ‘ইস্! শুনেই কেমন পানু গপ্পো মনে হচ্ছে। দ্যাখ্ আগে লুকিয়ে চুরিয়ে রেপকেস পড়তাম। এখন বাবা-কাকা সব্বার সাথে খুল্লাম খুল্লা পড়ছি।’ বোঝো! নীরোর জাতভাই। নন্দীগ্রাম পুড়ছে আর উনি ওদিকে...

তা সব দেখেশুনে সম্পাদককে বললুম -- ‘আমিও লিখব।’ উনি বললেন --‘লেখো।’ কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর কিছু লিখতে হাত সরছে না। কী হবে লিখে? লোকজন মরে গেল। পুলিশের গুলিতেই মরলো। মুখ্যমন্ত্রী বললেন -- ‘সি.বি.আই. তদন্ত হবে।’ তাও হল। আরে ভাই! এত লোক গুলি খেয়ে মরে গেল এটাই কী যথেষ্ট নয়? আবার তদন্তও হবে? কী জন্যে? দোষীদের সাজা দেওয়ার জন্যে? সেসব তো আর এ নশ্বর জীবরে দেখে যাওয়া হবে না দাদা। আসছে ভোটে আবার এদেরই ভোট দেব। সবাই জানি এ এক্কেবারে শাহরুখ খানের কেবিসি। চারটে উত্তর। ফিফটি করো অথবা ফোন আ ফ্রেন্ড... সঠিক উত্তর একটাই। বামকে যতই গাল দাও, বামেতরদের ক্ষমতায় আনার আগে নির্বাচন কমিশন জানতে চাইবে -- ‘ফ্রিজ করি?’ সেই মুহুর্তে ফ্রিজ হ’য়ে যাওয়া অনেক ঘরপোড়া, ক্ষেতহারা মরামুখ আসবে চোখের সামনে। তবু তুমি লাইফলাইন ইস্তেমাল করবে। বলবে --‘ভেবে দেখি।’ তাপ্পর? তারপর আবার কী? সেই চটঢাকা খুপরি। তুমি বোতাম টিপবে। বাইরে বেরিয়ে একমুখ হাসবে ক্যাডারদের ডেকে বলবে -- ‘এবার মার্জিন কত হবে ভাই?’ নাহলে তোমার লাইফলাইন খতম হ’য়ে যাবে।

আমি তখন বেঙ্গালুরু বসে অন্য বোতাম টিপছি। ভোট দিতে যেতে পারিনি। এই স্বস্তিবোধটা থাকবে অন্ততঃ। মাঝে মাঝে ভাবি। কাদের জমি ছিল অত? আমাদের গ্রামের অর্ধেকের বেশি লোকের নিজের জমিই নেই। তাদের পাশে তো দাঁড়াইনি। তারা আমাদের জমিতে কাজ করে। ধানের ভাগ নিয়ে গন্ডগোল করে। ছোটোকাকু গালাগালি করে। কখনও শখ ক’রে জমি দেখতে গেলে বাবার খাবার এনে দেওয়া সিকনি ঝরা ল্যাকপ্যাকে ছেলেমেয়েগুলোর দিকে মমতায় তাকিয়েছি। ব্যাস! ঐ পর্যন্তই...



 

প্রতিবেশী ওয়েবজিন