Image
 
Gifts: Misti | Mahabhoj | Cake
Movie: Bengali | Hindi | Satyajit
Music: Rabindra | Najrul | Adhunik
Books: Children | Pujabarshiki | Novel
নেপথ্যে প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন চিরঞ্জয় দাস   
আর্টিকেল সূচি
নেপথ্যে
পাতা 2
পাতা 3

উজ্জৈনীর মন ভালো নেই। কাল রাতের দিকে ভাবনা ফোন করেই তাকে খবরটা তাড়াহুড়োর মধ্যে এক নিশ্বাসে বলে যাওয়ার পরই টিভির সমস্ত খবরের চ্যানেল তোলপাড় করে ফেলেছিলো। একগাদা মেক-আপ মেখে, ইংরেজদের মতো কোটপরিহিতা সুন্দরী মহিলারা ঠোঁটের চুলচেরা সঠিক হিসেব-কষা নড়াচড়ায় জানিয়ে দিচ্ছিল সেই খবরটা। এপরও সে ফোন করে তার বাবাকে, মনের কোণে একটু আশা তখনও খুব সন্তর্পনে প্রজনন পদ্ধতিতে লালিত হচ্ছিলো, যে সব মিথ্যেই হবে-কিন্তু যাদবজীও আলাদা কিছু বললেন না‍!

উত্তর প্রদেশের এই মন্দির শহরে তখন শীতের সময়। কনকনে ঠান্ডায় শহর যেন কুয়াশার চাদরে মৃত নগরী। গঙ্গার ধারের আলোর কণাগুলো প্রচন্ড ঠান্ডায় জমে গিয়ে বেশীদূর ছড়িয়ে পড়তে পারছে না। টুকরো আলো নিকশ কালো শীতের রাতের আধারে যেন আকন্ঠ ডুবে রয়েছে।


মুকুন্দলাল যাদব বারাণসী শহরের ডি.আই.জি। উত্তর প্রদেশের লাগোয়া এক রাজ্যে গতমাসে ঘটা বিস্ফোরণের তদন্ত করতে নেমে দেখা যায় যে ঐ হত্যালীলার অন্তরালে যে দলটি রয়েছে তার কিংপিন নাকি বারাণসীতে বসে চুলচেরা ছক কষে ভারত জুড়ে একের পর এক বিপর্যয় ঘটিয়ে চলেছে। মুকুন্দলাল নিজে এই তদন্তটির রাজ্যস্তরে ভার পান গত সপ্তাহে। একরাশ অবিশ্বাস নিয়ে উনি যখন ঐ কিংপিনের হদিস জানতে পারেন তখন তাঁর বত্রিশবছরের পুলিশ জীবনে সবচেয়ে তাজ্জব বনে যান।


গতসপ্তাহে বুধবার পঞ্জাবের দোর্দন্ডপ্রতাপ পুলিস অফিসার মনজিৎ সিং ফোনে যখন যাদবজীর সাথে কথা বলেন তার স্বরে যেন চাপা উত্তেজনা। এরা দুজনেই আই.পি.এস-এর একই ব্যাচের। তাই বন্ধুত্বের দরুণ মাঝে মধ্যেই ফোনে কথা হয় দুজনের। এই হাসিঠাট্টার কথা বা কুশল বিনিময়ের সাথে সাথে কিছু রসালো উক্তিও। কিন্তু সেদিন মনোজিৎ দুকথার পর পরই সরাসরি পঞ্জাবে বিস্ফোরণের কথায় চলে এসেছিলো। পঞ্জাব পুলিশের বিভাগীয় শাখা তদন্ত করে যে আঁচ পেয়েছে দুষ্কৃতিকারী বারাণসীর দেবধামে সাধু সেজে বসে রয়েছেন সেই তথ্য এক নিশ্বাসে জানিয়ে বলেন, যাদবজী, এই কিংপিনকে ধরতে পারলে মনে হয় বেশ কটা বিস্ফোরণের জট খুলে যাবে। - আরে বলো কি সিং সাহেব, মহাশয় আমারই শহরে অতিথি হয়ে আছেন আর আমিই জানি না!
- মুকুন্দজী একে ধরে দেওয়ার দায়িত্ব আপনিই নিন।
- আরে বিলকুল। আমার অতিথিকে আমিই অভ্যর্থনা করব! আপনি নিশ্চিন্ত থাকুন!
- আমি কিছু ফাইল কালই পাঠিয়ে দেব যাতে আইডেন্টিফাই করতে সুবিধা হয়।
- জী বিলকুল।

মুকুন্দলাল ধার্মিক মানুষ। প্রতিদিন গঙ্গাস্নান সেরে তিনি কাশীবিশ্বনাথের পুজো দিয়ে বাড়ি ফেরেন। মন্‌জিৎ সিং-এর টেলিফোনটা পাওয়ার পরদিনও এর কোনো হেরফের হয় নি। তিনি দুঁদে অফিসার। ত্রিশ বছরের কর্মজীবনে তিনি বহু জটিল কেস সমাধান করেছেন। পরদিন বিকেলে মন্‌জিৎ সিং কথামতো দুটি ফাইল পাঠিয়ে দেন। ফাইল গুলো পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পড়ে কখন যে রাত বারোটা বেজে গেছে আর কখন যে এক প্যাকেট সিগারেট নিঃশেষ করে ফেলেছেন তার কোনো খেয়াল ছিল না। এই তথাকথিত কিংপিনের সম্পর্কে পড়ে ও তার ছবি দেখতে দেখতে তিনি অবাক হয়ে গেছেন। তাঁর মতো ডাকসাইটে অফিসারের এতো বড় ভুল হলো কি করে- শুধু এই ভেবেছেন আর এরই মধ্যে উজ্জৈনী দু দু’বার ফোন করে মনে করিয়েছে যে একদিনে রাত শেষ হয়ে পরের দিন শুরু হয়ে গেছে!




 

প্রতিবেশী ওয়েবজিন