Image
 
Gifts: Misti | Mahabhoj | Cake
Movie: Bengali | Hindi | Satyajit
Music: Rabindra | Najrul | Adhunik
Books: Children | Pujabarshiki | Novel
রেখেছ বাঙালি করে প্রিন্ট কর ইমেল
আর্টিকেল সূচি
রেখেছ বাঙালি করে
পাতা 2
পাতা 3

অনেকদিন পর আবার ড্রাফট‌ ফোল্ডারে ফিরে আসা। ছোট্ট জলপানের বিরতির নাম ক’রে জলপান, জলত্যাগ, আহার, নিদ্রা, মৈথুন ইত্যাদি মিলিয়ে একটা বড়সড় বিরতি (বিজ্ঞাপন বিরতির থেকেও বড়) নিয়ে ফিরে এলাম। দোষ - ত্রুটি - দীর্ঘসূত্রিতা -- সবকিছু আমার তরফেই ছিল।
সম্পাদকের তাড়ার ওপর তাড়াতেও লেখা হয়নি। অথচ এই ড্রাফট্ ফোল্ডারের শেষ কিস্তির সফট্‌ওয়্যার ইঞ্জিনীয়ার আমায় রীতিমত বিখ্যাত ক’রে তুলেছিল ফরওয়ার্ড মেলের মাধ্যমে। সাইবার দুনিয়ার লোকজন একে অপরকে পাঠিয়েছেন তো বটেই, এমনকি আমাকেও কেউ কেউ লেখাটি ফরওয়ার্ড করেছেন। তাই এমন জনপ্রিয়তার লোভ ছেড়ে থাকতে পারলাম না বেশিদিন।
মাঝে কত কী ঘটে গেল। নন্দীগ্রামে আবার আগুন জ্বললো, তসলিমাকে পেটাতে চাইলেন কিছু লোক, তেন্ডুলকার বাইরে বসে থাকলেন আর ঈশ্বরহীনভাবে ভারত একটা বিশ্বকাপ জিতে গেল, শাহ্‌রুখ সিক্স প্যাক কথাটা আবার মনে করিয়ে দিলেন সবাইকে... আমি আবার মুম্বাই ফিরে এলাম।

আরব সাগরের তীরে আছি। কিন্তু বঙ্গোপসাগরের পাড়ে কী ঘটছে তা তো দেখাই যায় বাংলা চ্যানেলগুলোর মাধ্যমে। মাঝেমধ্যে বাংলা চ্যানেলে দেখি ছোটো ছোটো বাচ্চারা নাচছে, গাইছে, এমনকি অনুষ্ঠান পরিচালনা পর্যন্ত করছে। সারা ভারতের অন্যান্য চ্যানেলের থেকে কিছু কম, কিছু বেশি। কিন্তু আজ সকালেই একটা বিজ্ঞাপন দেখে মন খারাপ হ’য়ে গেল। এক টিনএজার মেয়ে আর একজন অষ্টাদশীর কাছে কান্নাকাটি করছে --‘আমার দিকে কেউ ঘুরে তাকায় না।’ প্রথমে ভেবেছিলাম কোনও ফেয়ারেনস ক্রিম। এই এক জ্বালা। ছেলে হোক বা মেয়ে; ফর্সা না হ’লে মনের মানুষ পাওয়া মুশকিল। বিরক্ত মুখে চ্যানেল বদলাতে গিয়ে দেখলাম বিজ্ঞাপনটি যা ভেবেছিলাম তার থেকেও মারাত্মক। স্তনবর্ধক ( Breast Enhancement-এর কাছাকাছি বাংলা) তেলের পরামর্শ দিচ্ছে অন্য মেয়েটি। নিদারুণ আঘাত পেলাম। একজন মেয়ের দিকে ঘুরে তাকানোর কারণ শুধুমাত্র যদি তার স্তনের আকার এবং গঠন হয়, তবে রবিঠাকুরকে নিয়ে গর্ব করা বাঙালির রুচি নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই পারে। গোখলের সেই বিখ্যাত উক্তি নিয়ে অহংকারের দিন কি শেষ হল?

এ প্রসঙ্গেই মনে পড়ে গেল বাঙালি এখন বঙ। আমেরিকান স্টাইল। ক’দিন পর ফরাসী উচ্চারণে ডাকা হবে বঁ। এবং আমরা তাতে লেজ নেড়ে সাড়াও দেব। এক বন্ধুর কাছে শুনলাম বংদের নিয়ে তৈরি নতুন এক ছবির গান। ফিউশানের নামে রবিঠাকুরের গান পপ স্টাইলে গাওয়া হয়েছে। হু-লা-লা... হু-লা-লা... ইত্যাদি ঝালমুড়ির পর পাগলা হাওয়ার বাদল দিনে। যে গানের সঙ্গে বাঙালির নাড়ির টান, সেগুলিকে গগলস্‌ আর লো-কাট্‌ টপ পরিয়ে বাজারে আনা হচ্ছে। গাইছেন বাঙালি গায়করা-গায়িকারাই। অনেক বাঙালিকে দেখেছি দক্ষিণ ভারতের মানুষজনের ভাষা এবং সংস্কৃতির গোঁড়ামি নিয়ে সমালোচনা করেন। বেশ ক’বছর দক্ষিণে থাকার কারণেই আমি এই বেনোজলের সাথে মিশে যাওয়া বাঙালীদের থেকে গোঁড়া দক্ষিণীদেরই বেশি শ্রদ্ধা করি। ধোপার কুকুরের থেকে গোঁড়া তামিল বা মালায়লী হওয়া অনেক ভালো। নিজের মূলটাকে ধরে রাখতে পারাটা অনেক বড় গুণ। বড় একখানা লাল টিপ আর বাটিক পরে রবীন্দ্রসদন যাওয়াটাই বাঙালিয়ানার সব নয়। কতদিন পরে এসে কীসব শক্ত কথাবার্তা ব’লে চলেছি। যারা হাই তুলছেন, তাঁদের জন্যে এবার জোকস্।‌



 

প্রতিবেশী ওয়েবজিন