Image
 
Gifts: Misti | Mahabhoj | Cake
Movie: Bengali | Hindi | Satyajit
Music: Rabindra | Najrul | Adhunik
Books: Children | Pujabarshiki | Novel
উত্তরণ - পর্ব ১০ প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন অনুপম   
আর্টিকেল সূচি
উত্তরণ - পর্ব ১০
পাতা 2
পাতা 3
পাতা 4
পাতা 5
পাতা 6
পাতা 7
পাতা 8
পাতা 9
পাতা 10
পাতা 11

দশ
এর আগে

সকাল সকাল ঘুম ভেঙ্গে গেল অনিরুদ্ধর।
কোনো কারণ নেই, এমনিই ঘুমটা ভেঙ্গে গেছে।
বিছানার থেকে উঠে জানলার কাছে গিয়ে দাঁড়াল। দিনের আলো ফুটে গেছে, কিন্তু এখনো সূর্য ওঠেনি। চারিদিকটা ঝকঝক করছে। যেন কিছু দিয়ে সারা পৃথিবীটা মুছে ঝকঝকে করা হয়েছে। এত সুন্দর সকাল অনিরুদ্ধ বহুদিন দেখেনি।
বেশির ভাগ সকালই কেমন যেন ম্যাড়ম্যাড়ে।
কিন্তু আজকের সকালটা যেন সেই ছোটবেলার সকালের মত।
উজ্জ্বল, ঝকঝকে, নরম।
এমন সকালে মন এমনিই ভালো হয়ে যায়।
এমন সকালে কোনো মেয়ের মিষ্টি গলার প্রেমের গান শুনতে ইচ্ছা করে।
অনিরুদ্ধ ঘাড় ঘুরিয়ে দেখল খাটের পাশে দেয়াল কেটে তৈরি করা তাকের ওপরে একটা ছোট রেডিও রাখা। ওর কলেজ জীবনের রেডিও। রেডিও শুনতে শুনতে ও কলেজের পড়া করত।

কিন্তু অনিরুদ্ধ রেডিও না চালিয়ে চুপ করে জানলার ধারে দাঁড়িয়ে রইল। কানের মধ্যে কোনো একটা পুরনো দিনের গান যেন বাজছে। এমনই হয়।
যখন অনিরুদ্ধর মন ভালো লাগে তখন এমনই হয়।
ও যেন কোনো পুরনো দিনের গান শুনতে পায়।
আসলে যে গান ওর ভালো লাগে সেই গানটা ওর মনের মধ্যে আপনিই গুনগুন করে।
এমন সকালেই তো ইডেনে ঘুরতে মন চায়।
এমন সকালেই তো মন চায় ভিক্টোরিয়ার দিকে তাকিয়ে চুপ করে ঘাসের ওপরে বসে থাকতে। এমন সকালেই তো ভালো লাগে কারো নরম হাত ধরে পাশাপাশি ময়দানে হাঁটতে। এমন সকালেই তো ভালো লাগে নিউ ইয়র্কের সেন্ট্রাল পার্কে জগিং করতে।
কত কিছু করতে ভালো লাগে।
কিন্তু কিছুই না করে অনিরুদ্ধ চুপ করে জানলার গ্রিল ধরে দাঁড়িয়ে রইল।
সকালের মিষ্টি রোদটা গায়ে মেখে, সকালটাকে উপভোগ করতে লাগল মন দিয়ে।
হঠাৎ ধুপ করে একটা শব্দ এল বারান্দা থেকে।
খবরের কাগজটা বোধ হয় কাগজওয়ালা নিচে থেকে ছুঁড়ে দোতলার বারান্দায় ফেলল।
ঝপ্ করে মনটা সকালের ভালো লাগা থেকে ফিরে এল কঠিন বাস্তবে।
মনিদীপা আসবে আজ।
আসুক।
মনিদীপার আসার কথায় আর ওর পুরনোদিনের ভালো লাগা আসছেনা। সেদিনের ভালো লাগা আজ আর নেই। আজ মনিদীপা শুধুই কারো স্ত্রী। জানলা থেকে সরে এল অনিরুদ্ধ।
বাথরুমের কাজ সেরে ঘরে এসে অনিরুদ্ধ পাজামা পাঞ্জাবী পরে নিল। ঘর থেকে বেরিয়ে বারান্দার দরজা খুলে খবরের কাগজের রোলটা হাতে তুলে নিল। কাগজের রোলটা থেকে দড়িটা খুলে পাঞ্জাবীর পকেটে রেখে একটা বেতের চেয়ারে বসল। বারান্দায় এক চিলতে রোদ এসে পরেছে। এখনো রোদের সেরকম তেজ নেই। সূর্য সবে অল্প একটু উঠেছে। গভীর নীল আকাশ এখনো দেখা যাচ্ছে। কিছু লোকের কথাবার্তার আওয়াজ রাস্তা থেকে ভেসে আসছে।
অনিরুদ্ধ খবরের কাগজটা খুলে পড়তে আরম্ভ করল।
রোদটা তেরছা ভাবে জানলা দিয়ে এসে স্নিগ্ধার পায়ের ওপরে পরেছে। রোদের তাপে ওর ঘুম ভেঙ্গে গেল। চোখ খুলে সকালের নরম রোদের আমেজটা একটু উপভোগ করল স্নিগ্ধা। জানলার দিকে তাকিয়ে শুয়ে আছে। ঘরটা আলোয় ঝলমল করছে। রাত্রে মেঘ করেছিল। সকালে মেঘ কেটে গিয়ে ঝকঝকে পরিস্কার আকাশ।


 

প্রতিবেশী ওয়েবজিন